শ্রীলঙ্কার নাটকীয় জয়

25

টেস্ট ক্রিকেটে ভুতুড়ে একটি দিন গেল গতকাল। পচেফস্ট্রমে ১৭.১ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়েছে বাংলাদেশ। ওদিকে আবুধাবি টেস্টের শেষ দিনে শ্রীলঙ্কা আর পাকিস্তান মিলে ৭৩ ওভারে হারিয়েছে ১৬ উইকেট! দুই ভেন্যুতে একদিনে ৯০ ওভারে পড়লো ২৩ উইকেট। আবুধাবিতে শ্রীলঙ্কাকে দ্বিতীয় ইনিংসে ১৩৮ রানে অলআউট করে পাকিস্তান। ১৩৬ রানের জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে নিজেরা অলআউট হয়েছে ১১৪ রানে। হেরাথ এবার নিলেন ছয় উইকেট। দুই ইনিংস মিলিয়ে তার উইকেট সংখ্যা ১১। রঙ্গনা হেরাথ ম্যাচে দশ উইকেট নিলেন ১১ বার, প্রথম বোলার হিসেবে পাকিস্তানের সঙ্গে নিলেন ১০০ উইকেট, প্রথম বাঁ-হাতি স্পিনার হিসেবে নিলেন ৪০০ উইকেট!
আবুধাবিতে আগের দিনই ডাক দিচ্ছিল রোমাঞ্চ। আগের দিনের স্কোরের সঙ্গে ৬ উইকেটে আর ৬৯ রান যোগ করেছিল শ্রীলঙ্কা। প্রথম আঘাত ছিল মোহাম্মদ আব্বাসের, আগের দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান কুশাল মেন্ডিস ও সুরাঙ্গা লাকমালকে ফিরিয়ে। এরপরের সবটাই ইয়াসিরময়, এই লেগস্পিনার পেলেন আরেকবার ইনিংসে ৫ উইকেট। তবে অপরাজিত থাকলেন ডিলওয়েলা, ৪০ রান করে। আবুধাবির উইকেট যে স্পিনারদের হাতছানি দিচ্ছিল শুধু! মাত্র ১৩৬ রানের টার্গেট।
তবুও পাকিস্তানের ১৬ রানের মাঝেই নেই সামি আসলাম, শান মাসুদ, আজহার আলি, প্রথম ইনিংসে ফিফটি করা তিন ব্যাটসম্যান। হেরাথ, লাকমাল, পেরেরা মিলে নিলেন তিনটি উইকেট। এরপর শুধুই স্পিন। স্রোতের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে চাইলেন সরফরাজ আহমেদ ও হারিস সোহেল। দুজনের ৪২ রানের জুটি আশাও জোগালো পাকিস্তানকে। সরফরাজ স্টাম্পড হলেন হেরাথের বলে, হারিস এলবিডব্লিউ পেরেরার বলে। হাসান আলিও বোল্ড হেরাথের স্পিনে। ইনিংসের সেরা বলটা করলেন হেরাথ এরপর। বিশাল টার্নে আমিরের বোল্ড আউটে পাকিস্তানের শেষ আশাটুকুও শেষ হয়ে যায়।

সংক্ষিপ্ত স্কোর
টস : শ্রীলঙ্কা জয়ী
শ্রীলঙ্কা ১ম ইনিংস: ৪১৯ অল-আউট, ১৫৪.৫ ওভার (চান্ডিমাল ১৫৫*, করুনারত্নে ৯৩, ডিকভেলা ৮৩, আব্বাস ৩/৭৫, ইয়াসির ৩/১২০) ও ২য় ইনিংস ১৩৮ অল-আউট, ৬৬.৫ ওভার (ডিকভেলা ৪০*, সিলভা ২৫, ইয়াসির ৫/৫১, আব্বাস ২/২১)
পাকিস্তান ১ম ইনিংস: ৪২২ অল-আউট, ১৬২.৩ ওভার (আজহার ৮৫, হারিস ৭৮, মাসুদ ৫৯, আসলাম ৫১, হেরাথ ৫/৯৩, লাকমাল ২/৪২, প্রদীপ ২/৭৭) ও ২য় ইনিংস ১১৪ অল-আউট, ৪৭.৪ ওভার (হারিস ৩৪, শফিক ২০, হেরাথ ৬/৪৩, পেরেরা ৩/৪৬)
ফল : শ্রীলঙ্কা ২১ রানে জয়ী