‘সময়ের প্রয়োজনে নির্বাচনে জেতার জন্য জোট হয়’

23

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, গণতন্ত্রের শত ফুল ফুটছে, ভালো তো। এটাই গণতন্ত্রের বিউটি। জোট হবে, গ্রুপ হবে। এটা হতে থাক, অসুবিধা কি? নির্বাচনকে সামনে রেখে যা হচ্ছে তা ভালো দিক। নির্বাচনে আদর্শগত বিষয়টা মূখ্য নয়। নির্বাচন হলো কৌশলগত ব্যাপার। সময়ের প্রয়োজনে নির্বাচনে জেতার জন্য জোট হয়। তবে শেষ পর্যন্ত এ মেরুকরণ কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, তা দেখতে অপেক্ষা করতে হবে। বৃহস্পতিবার ড্যফোডিল ইউনিভার্সিটি মিলনায়তনে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও পাচারবিরোধী এক আলোচনা সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জাবাবে এসব কথা বলেন তিনি। এসময় মন্ত্রী আরও বলেন, তারা তো সেখানে ষড়যন্ত্র করছে না। তারা জোট করছে। অসুবিধা কি? তাহলে আ স ম আবদুর রবের বাসায় আয়োজিত বৈঠকে পুলিশের বাধা দেয়া হয়েছিল কেন জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, বাধা দেওয়ার সিদ্ধান্ত কেন্দ্রীয়ভাবে ছিল না। অতি উৎসাহী কেউ করেছে কিনা আমি জানি না। এ ধরনের নির্বাচনি কর্মকান্ডে বাধা আমাদের সরকারি কিংবা দলীয়ভাবে দেয়ার কোনও সম্ভাবনাই নেই। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসাইন মুহম্মদ এরশাদের মহাজোট থেকে বের হয়ে যাবার ঘোষণা সর্ম্পকে তিনি বলেন, এখনতো মহাজোট নেই, তাহলে ভাঙবে কি করে? এখন আছে ঐকমত্যের সরকার। এ সরকারে তাদের তিনজন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী রয়েছেন। এরশাদ সাহেব নিজে তো প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হিসাবে পতাকাবাহী গাড়িতে যাচ্ছেন। তারা সরকারে স্বেচ্ছায় এসেছেন। এখন যদি তারা বের হয়ে যেতে চান, আমরা বাধা দেবো না।