স্ট্রাইকার সংকটে রিয়াল!

32

রিয়াল মাদ্রিদের ট্রান্সফার নীতিতে অনেক পরিবর্তন এনেছেন জিনেদিন জিদান। নতুন খেলোয়াড় দলে ভেড়ানোর জন্য তারা এখন তাড়াহুড়া করে না। প্রচুর অর্থ থাকার কারণে একই সময়ে একগাদা নামিদামি খেলোয়াড় দলে রাখা তাদের যেন নিয়মে পরিণত হয়েছিল। সবাইকে একাদশে সুযোগ দেয়াও সম্ভব হতো না। এতে রিয়ালের বেঞ্চে বসে থেকে অনেক দামি ও প্রতিভাবান খেলোয়াড়ের ক্যারিয়ার শঙ্কায় পড়তো। কিন্তু জিনেদিন জিদান ক্লাবটির দায়িত্ব নেয়ার পর এই নীতিতে আমূল পরিবর্তন এসেছে। মাত্র দেড় বছর ক্লাবটির কোচের দায়িত্ব পেয়েছেন তিনি। এরই মধ্যে দুই চ্যাম্পিয়ন্স লীগ ও এক লা-লিগার শিরোপা জিতেছেন তিনি। কিন্তু রিয়ালের দায়িত্ব নেয়ার পর তিনি দলে তেমন পরিবর্তন আনেননি। নতুন কোনো দামি খেলোয়াড় দলে ভিড়িয়ে চমক দেখাননি। আগের কোচের রেখে যাওয়া দল নিয়েই তিনি দেখিয়েছেন দারুণ সাফল্য।
আর ২০১৭-১৮ মৌসুম সামনে রেখে তো খেলোয়াড় না কিনে বরং দামি খেলোয়াড়দের বিক্রিতে নেমেছেন তিনি। হামেস রদ্রিগেসকে বায়ার্ন মিউনিখে ধারে (লোন) পাঠিয়েছেন তিনি। আরেক স্ট্রাইকার আলভারো মোরাতাকে ৭০ মিলিয়ন পাউন্ডে বিক্রি করে দিয়েছেন চেলসির কাছে। ডিফেন্ডার পেপেকেও ছেড়ে দিয়েছে রিয়াল। দলে ভিড়িয়েছেন অখ্যাত দুই খেলোয়াড়- সেবালস ও থিও হারনান্দেজকে। তারা দু’জন আবার মিডফিল্ডার। এতে টনি ক্রস, লুকা মদরিচরা হয়তো ব্যাকআপ পেলেন। কিন্তু রোনালদো-বেলরা আর ব্যাকআপ পেলেন কই! তারকা খেলোয়াড় বলতে কিলিয়ান এমবাপের দিকে এখন নজর তাদের। রিয়াল স্ট্রাইকার সংকটে পড়বে এটা হয়তো কখনো কেউ ভাবেনি। কিন্তু এবার তারা সেই শঙ্কায় পড়েছে। কোচ জিনেদিন জিদান নিজেই বিষয়টি স্বীকার করলেন। বললেন, ‘আমরা একজন স্ট্রাইকার সংকটে রয়েছি।’
মোরাতা ও রদ্রিগেজকে ছেড়ে দেয়ার পর রিয়ালের আক্রমণভাবে এখন আছেন শুধু ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো, করিম বেনজেমা ও গ্যারেথ বেল। ইসকোও আছেন। গ্যারেথ বেলের আবার ইনজুরি নিত্যসঙ্গী। এই তিনজনের একজন খেলতে না পারলেও একটি জায়গা শূন্য থাকবে। অথচ গত মৌসুমে আক্রমণভাগে ছিল লড়াই। রোনালদো-বেল-বেনজেমাদের কারণে অনেক ম্যাচ বেঞ্চে বসে কাটাতে হয় আলভারো মোরাতা, হামেস রদ্রিগেজ ও ইসকোকে। তবে যখনই তারা সুযোগ পেয়েছেন তখনই কাজে লাগিয়েছেন। রিয়াল মাদ্রিদ এখন ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়ন্স কাপ খেলতে যুক্তরাষ্ট্রে। নিজেদের ঝালাই করে নেয়ার জন্য মাঠে নামার আগেই একজন স্ট্রাইকারের সংকটের কথা স্বীকার করলেন জিদান।
ফরাসি এ কিংবদন্তি সাবেক ফুটবলার বলেন, ‘এই মুহূর্তে আমাদের দলে একজন স্ট্রাইকার কম আছে। আলভারো মোরাতা আগের মৌসুমে এই জায়গাটায় দারুণ খেলেছে। সে দলকে অনেক কিছুই দিয়েছে। তাকে ছাড়া দল কিছুটা হলেও দুর্বল। কিন্তু অতীত নিয়ে বসে থাকলে তো হবে না। আমি এটাই বিশ্বাস করি।’ হামেস, মোরাতা ক্লাব ছাড়লেও তাদের শূন্যস্থান খুব শিগগিরই পূরণ হয়ে যাবে বলে মনে করেন জিদান, ‘এটা সত্যি যে কয়েকজন ভালো ফুটবলার ক্লাব ছেড়েছে।
তবে ভালো কিছু তরুণও দলে এসেছে। আমরা সবসময়ই সামনের দিকে তাকায়। তরুণরা মাদ্রিদে হয়ে খেলার জন্য মুখিয়ে আছে। মৌসুম শুরুর পরেই বুঝতে পারবো, দলে তাদের অবস্থান কতটুক শক্ত হবে। তবে প্রস্তুতিতে কোনো ঘাটতি নেই। প্রতিনিয়তই দলের সবাই নিজেদের খেলায় উন্নতি করার চেষ্টা করছে।’