শেরপুরে শারদীয় দুর্গোৎসব শুরু: আগমনী শোভাযাত্রার উদ্বোধন করলেন হুইপ আতিক

10

নিজস্ব প্রতিবেদক: সারাদেশের ন্যায় শেরপুর জেলা সদরসহ পাঁচ উপজেলায় ১ অক্টোবর শনিবার সকাল থেকে সার্বজনীন শারদীয় দুর্গাপূজা ষষ্ঠী পূজার মধ্য দিয়ে পাঁচ দিনব্যাপী শারদীয় দুর্গোৎসব শুরু হয়েছে। জগতের মঙ্গল কামনায় এবছর দেবী দুর্গা গজে (হাতি) আসছেন, আর বিদায় নেবেন নৌকায় চড়ে। শ্বশুরবাড়ি কৈলাস থেকে কন্যারূপে তিনি বাপের বাড়ি বেড়াতে মর্ত্যলোকে আসছেন। সঙ্গে আসছেন চার সন্তান-বিদ্যার দেবী সরস্বতী, ঐশ্বর্যের দেবী লক্ষ্মী, সিদ্ধিদাতা গণেশ এবং পৌরুষের প্রতীক কার্তিক। পুরাণে আছে, অশুভ অসুর শক্তির কাছে পরাভূত দেবতারা স্বর্গলোকচ্যুত হয়েছিলেন। চারদিকে অশুভের প্রতাপ। এই অশুভ শক্তিকে বিনাশ করতে একত্র হলেন দেবতারা। অসুর শক্তির বিনাশে অনুভূত হলো এক মহাশক্তির আবির্ভাব। দেবতাদের তেজরশ্মি থেকে আবির্ভূত হন অসুরবিনাশী দেবী দুর্গা।

এ উপলক্ষে শ্রী শ্রী গোপাল জিউর মন্দিরের প্রাঙ্গণে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ শেরপুর জেলা শাখার সভাপতি এড. সুব্রত দে ভানু’র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক বিনয় কুমার সাহার সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের হুইপ বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মো. আতিউর রহমান আতিক এমপি আগমনী শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন। এসময় আগমনী শোভাযাত্রা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন শেরপুরের জেলা প্রশাসক সাহেলা আক্তার, পুলিশ সুপার মো. কামরুজ্জামান বিপিএম, শেরপুর পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া লিটন। আগমনী শোভাযাত্রায় জেলা শহরের বিভিন্ন পূজামন্ডপের নারী-পুরুষ, যুবক-যুবতী ও শিশুরা অংশ গ্রহণ করেন। এসময় শোভাযাত্রাটি গোপাল জিউর মন্দির প্রাঙ্গণ থেকে বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পুনরায় মন্দির প্রাঙ্গণে গিয়ে শেষ হয়।

পরে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন হুইপ বীর মুক্তিযোদ্ধা আতিউর রহমান আতিক এমপি। আলোচনা শেষে গরীব অসহায়দের মাঝে খাদ্য ও বস্ত্র বিতরণ করা হয়।

এছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসক) মোহাম্মদ আবু বকর সিদ্দিক, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মেহনাজ ফেরদৌ, সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বছির আহমেদ বাদল, ডিআইও-১ মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, জেলা আওয়ামী লীগ সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মোঃ আনিসুর রহমান, শেরপুর জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ সাধারণ সম্পাদক চন্দন সাহা, বিশিষ্ট বস্ত্র ব্যবসায়ী দিলীপ পোদ্দারসহ প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।

এ বছর শেরপুর জেলা সদরসহ পাঁচ উপজেলায় ১৫৪টি পূজা মন্ডপে একযোগে শুরু হয়েছে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান শারদীয় দুর্গোৎসব। পাঁচ দিনের দুর্গোৎসব কে ঘিরে প্রতিটি পূজা মন্ডপে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
sadi